Home / বিনোদন / ইরফান খান কত কষ্টে দিন কাটাচ্ছেন, দেখলে চোখের জল ধরে রাখতে পারবেন না…

ইরফান খান কত কষ্টে দিন কাটাচ্ছেন, দেখলে চোখের জল ধরে রাখতে পারবেন না…

‘জন্মিলে মরিতে হবে, অমর কে কোথা কবে?’। সত্যিই তো, জন্মালে তো মরতেই হবে। কিন্তু যদি সময়ের আগেই মৃত্যু আসে তাহলে তো সেটা খুবই দুঃখের। মৃত্যু বলতে জীবনের সমাপ্তি বোঝায়। জীববিজ্ঞানের ভাষায় প্রাণ আছে এমন কোন জৈব পদার্থের জীবনের সমাপ্তিকে মৃত্যু বলে। অন্য কথায় মৃত্যু হচ্ছে এমন একটি অবস্থা যখন সকল শারিরীক কর্মকাণ্ড যেমন শ্বসন, খাদ্য গ্রহণ, পরিচলন, ইত্যাদি থেমে যায়। কোন জীবের মৃত্যু হলে তাকে মৃত বলা হয়।

বলিউড অভিনেতা ইরফান খান গত ১৫ই মার্চ নিজেই টুইট করে জানিয়েছিলেন যে তিনি দুরারোগ্য এক ক্যান্সারে আক্রান্ত। তার নিউরো এন্ডোক্রাইন টিউমার হয়েছে। তিনি জানিয়েছেন আর মাত্র কয়েক মাস হয়তো তিনি বাঁচবেন। বর্তমানে তার চিকিৎসা চলছে লন্ডনের একটি হাসপাতালে।

ইরফান খান, জন্মগত নাম সাহাবজাদা ইরফান আলী খান হলেন একজন ভারতীয় চলচ্চিত্র অভিনেতা। সাধারণত তিনি বলিউডে অভিনয়ের মাধ্যমে বেশী পরিচিত। ইরফান খানের জন্ম হয় ৭ই জানুয়ারি, ১৯৬৭ সালে রাজস্থানের জয়পুরে। তিনি শুধুমাত্র যে হিন্দি সিনেমাতেই তার অভিনয় দক্ষতা দেখিয়েছেন তা নয়, বাংলা ও ইংরাজি সিনেমাতেও সমান দক্ষতার সাথে কাজ করেছেন।

দ্য অ্যামেজিং স্পাইডারম্যান, জুরাসিক ওয়ার্ল্ড এর মতন সিনেমায় তিনি তার অভিনয় দক্ষতা দেখিয়েছেন। তিনি ২ বার জাতীয় পুরস্কারও পেয়েছেন, পান সিং তোমর ও হিন্দি মিডিয়ামের জন্য। ৩ বার ফিল্ম ফেয়ার পুরস্কার পেয়েছেন।

এই ইরফান খানই গত ১৫ই মার্চ টুইট করে জানান তিনি দুরারোগ্য এক ব্রেনের অসুখে ভুগছেন। কিন্তু কি অসুখ সেটা তিনি তখন খোলশা করে বলেননি। তিনি শুধু এটুকু বলেছিলেন সময় হলে তিনি নিজের রোগ আর রোগের সাথে লড়াই করার গল্প শোনাবেন। তারপর থেকে তিনি লন্ডনে চিকিৎসাধীন। সম্প্রতি তিনি টাইমস অফ ইন্ডিয়াকে একটি দীর্ঘ চিঠি লিখেছেন। যেখানে তিনি তার রোগ ও রোগের সাথে লড়াই করার গল্প বলেছেন।

ইরফান লিখেছেন যে, “বেশ কিছুদিন হল আমি জানতে পেরেছি যে, আমার ‘হাইগ্রেট নিউরো অ্যান্টোক্রাইন’ নামক মস্তিষ্কের ক্যান্সার হয়েছে। এটি আমার শব্দ ভাণ্ডারের একটি নতুন শব্দ। এটি এমনই একটি বিরল রোগ যার কোন সঠিক চিকিৎসা নেই, কাজেই এক অনিশ্চিত পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে আমায় এগিয়ে যেতে হচ্ছে।”

ইরফান আরও লিখেছেন, “এই বিশাল পৃথিবীতে মানুষ একটা শক্তিহীন প্রাণী ছাড়া আর কিছুই নয়। তবুও আমরা এই জীবনকে পরিচালনা করার জন্য ব্যস্ত হয়ে পড়ি। মাত্র কয়েক মাস আগেই আমি সম্পূর্ণ অন্য এক দুনিয়ায় ছিলাম। অনেক স্বপ্ন, আবেগ এবং আনন্দের মধ্যে ছিলাম।”

ইরফান আরও বলেছেন, “এই পরিস্থিতিতে আমি আমার ছেলেকে বার বার বুঝিয়েছি। ওকে বলেছি যে ভয় আর অনিশ্চয়তা যেন জীবনকে থমিয়ে দিতে না পারে। আমি এর মাঝে অনুভব করেছি জীবন আর মৃত্যুর মাঝে একটা সুক্ষ্ম রাস্তার ফারাক। জীবন মানেই প্রবল অনিশ্চয়তা।”

এমনটাই জানিয়েছেন ইরফান তার হৃদয়বিদারক চিঠিতে। ইরফান খান মানেই একটু খ্যাপামি, একটু অগোছালো, বোহেমিয়ান এক মানুষ। যার হাজারও কাজে বিরক্তি আসে, কিন্তু পরক্ষণেই হেসে ফেলতে হয়। সংলাপ উচ্চারণেও সেই হিউমার ধরে রাখতেন অভিনেতা।

তাই তার ভক্তরা খুবই বিমর্ষ তাদের প্রিয় নায়কের জন্যে। তারা অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করে আছেন কবে তিনি সুস্থ হয়ে আবার সদর্পে সিনেমায় অভিনয় করতে পারবেন। আমরাও আশা করছি তিনি খুবই তাড়াতাড়ি আবার সিনেমার পর্দায় ফিরে আসুক।