Home / স্বাস্থ্য টিপস / বিজ্ঞানীরা খুজে বের করলো এমন এক পাতা যা খেলে কিডনির পাথর গলে বেরিয়ে যাবে!

বিজ্ঞানীরা খুজে বের করলো এমন এক পাতা যা খেলে কিডনির পাথর গলে বেরিয়ে যাবে!

বিজ্ঞানীরা খুজে বের করলো- তুলসী আমাদের সবার পরিচিত একটি ঔষধিগাছ। এ গাছের পাতায় বহু রোগ সারানোর উপকারি গুণ রয়েছে।

তুলসী পাতার রস বা চা প্রতিদিন একগ্লাস করে পান করলে, আমাদের কিডনিতে পাথর হওয়ার আশংকা কমে যায়। আর যদি কিডনিতে পাথর জমে তাহলে তুলসী পাতার রস টানা ৬ মাস পান করলে সেই পাথর গলে প্রস্রাবের সঙ্গে বেরিয়ে যায়।

এছাড়া সর্দি, কাশি, কৃমি, প্রস্রাবে জ্বালা কমায়, হজমকারক ও কফ গলাতে দারুন কাজ করে তুলসী পাতা। এটি ক্ষত সারাতে এন্টিসেপটিক হিসেবেও কাজ করে।তুলসিপাতা দিয়ে চা ও মিশ্রণ তৈরির কয়েকটি প্রস্তুত প্রণালী নিম্নে দেয়া হলো :

তুলসী পানি

উপকরণ : দুই কাপ পানি ও কয়েকটি পাতা।

প্রস্তুত প্রণালী : একটি পাত্রে দুই কাপ পানি নিন। এর সঙ্গে কয়েকটি তুলসিপাতা সিদ্ধ করুন। ফুটে উঠলে নামিয়ে পান করতে পারেন। এই মিশ্রণটি গলা ব্যথা ও খুসখুসে কাশি কমিয়ে আপনাকে আরাম দেবে।

তুলসী-চা

উপকরণ : ১০-১৫টি তুলসীপাতা, গুড়, পানি ও লেবুর রস।

প্রস্তুত প্রণালী : প্রথমে গুড় ও তুলসীপাতা বেটে নিন। এর মধ্যে দেড় কাপ পানি ও এক চামচ লেবুর রস মিশিয়ে চুলায় বসান। মিশ্রণটি ফুটে উঠলে নামিয়ে ফেলুন। এই চা পান করলে আপনার শরীর উষ্ণ থাকবে।

ভেষজ তুলসী-চা

উপকরণ : এক টুকরো আদা, গোলমরিচ, লবঙ্গ, তুলসীপাতা, দারুচিনি, এলাচ পরিমাণ মতো।

প্রস্তুত প্রণালী : পরিমাণমতো পানিতে উপরের উপকরণগুলো মিশিয়ে জ্বাল দিন।১০ মিনিট পর নামিয়ে ছেকে পান করতে পারেন।

এই ভেষজ তুলসী-চা আপনার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় এবং ডেঙ্গু ও ম্যালেরিয়া রোগ থেকে বাঁচানোর ক্ষমতা রাখে।

হার্বাল জুস

উপকরণ : আজওয়াইন, তুলসীপাতা, জিরা, আমচুর গুঁড়া, লবণ এবং পুদিনা পাতা পরিমাণ মতো।

প্রস্তুত প্রণালী : চার কাপ পানিতে উপরের উপকরণগুলো মিশিয়ে ১০-১৫ মিনিট জ্বাল দিন। এরপর পান করুন। এই জুস প্রতিদিন পান করেল হজমশক্তি বাড়বে এবং পানিশূন্যতা থেকেও আপনাকে রক্ষা করবে।

আরো পড়ুন :

রক্ত পরিষ্কার করে যেসব খাবার, দেখে নিন

কিছু খাবার রয়েছে, যেগুলো শরীরকে পরিশোধিত করতে সাহায্য করে। ধূমপান করা ও জাঙ্ক ফুড খাওয়ার অভ্যাস বাদ দিয়ে খাদ্যতালিকায় এসব খাবার রাখলে দেহের

রক্ত পরিশোধিত হতে অনেকটাই সাহায্য হয়। নিম রক্তকে পরিশোধনে সাহায্য করে। এটি অ্যান্টিভাইরাল, অ্যান্টিসেপটিক, অ্যান্টিফাঙ্গাল ও প্রদাহরোধী উপাদান। এক কাপ হালকা গরম পানির মধ্যে এক ফোঁটা নিমের তেল দিন। প্রতিদিন পান করুন।

আপেল: আপেলের মধ্যে রয়েছে আঁশ। এর মধ্যে রয়েছে ফাইটোনিউট্রিয়েন্টস। আপেল রক্তকে পরিশোধিত করে এবং শরীর সতেজ রাখে।

রসুন: ঘুম থেকে ওঠার পর কাঁচা রসুন প্রতিদিন খান। এটি রক্ত ও রক্তনালিকে পরিশোধন করে। এটি লিভারের জন্যও ভালো।

গাজর: গাজরের মধ্যে রয়েছে গ্লুটাথাইয়োনি। রক্ত পরিশোধন করতে সাহায্য করে এটি। এটির উপকার ভালোভাবে পেতে গাজর কাঁচা খেতে পারেন।

লেবু: হালকা গরম পানির মধ্যে লেবু ও মধু মিশিয়ে খেলে শরীরে বিষাক্ত পদার্থ কমবে।

হলুদ: হলুদ রক্তের নালি পরিষ্কার করে এবং রক্ত সঞ্চালনে সাহায্য করে। এ জন্য নিয়মিত হলুদ দুধ খেতে পারেন।