মাথা ও হাড়ের জোড়ার ব্যথা নিরাময়ে জাদুকরী তেজপাতা!

বেশীরভাগ মানুষ নানান ধরণের ছোট বা বড় অসুস্থতার ক্ষেত্রে ওষুধপত্র খেতে একেবারেই পছন্দ করেন না। বিভিন্ন ধরণের ওষুধ খাওয়ার চাইতে ঘরোয়া সমাধানের প্রতি আগ্রহ থাকে সকলের। কারণ যত বেশী ঘরোয়া উপায়ে প্রাকৃতিক উপাদান দিয়ে অসুস্থতা সারানোর চেষ্টা করা হবে, ততোই স্বাস্থ্যের জন্য ভালো। আনন্দের ব্যাপার হচ্ছে, বেশীরভাগ অসুখই ঘরোয়া উপায়ে সঠিক উপাদান ব্যবহারে নিরাময়যোগ্য। এক্ষেত্রে জানা থাকা প্রয়োজন, কোন রোগের ক্ষেত্রে কোন প্রাকৃতিক উপাদান ব্যবহার করতে হবে এবং কী নিয়মে। সঠিক উপাদান সঠিক নিয়মে ব্যবহার করতে পারলে খুব দ্রুত আরোগ্য পাওয়া সম্ভব হয়।

আজকে যে পাতাটি নিয়ে কথা বলা হবে, সেই পাতা সকল বাসার রান্নাঘরেই রয়েছে। খুবই পরিচিত এবং বহু ব্যবহৃত এই পাতাটি হলো তেজপাতা। যার অনন্য গুণের কথা বেশীরভাগ মানুষেরই অজানা।

রান্নায় সুবাস তৈরি করা এবং রান্নার স্বাদ বৃদ্ধি করা ছাড়াও তেজপাতার রয়েছে দারুণ কিছু স্বাস্থ্যগুণ। বিশেষ করে মাথাব্যথা ও হাড়ের জোড়ার ব্যথা সারাতে এই পাতা সবচাইতে বেশী কার্যকর। এছাড়াও, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে, নার্ভ সিস্টেম শান্ত রাখতে, দুশ্চিন্তা কমাতে এবং মানসিক চাপ কমাতে দারুণ এই পাতা কাজ করে থাকে। জেনে নিন মাথাব্যথা ও হাড়ের জোড়ার ব্যথা সারাতে কীভাবে তেজপাতা ব্যবহার করতে হবে।

যেভাবে তৈরি করতে হবে তেজপাতার তেল

২৫০ মিলিলিটার অলিভ অয়েল এবং ৩০ গ্রাম পরিমাণ তেজপাতা নিতে হবে। সবগুলো তেজপাতা অলিভ অয়েলে চুবিয়ে ফেলতে হবে। একটি কাঁচের বোতলের মাঝে মিশ্রণটি নিয়ে অন্ধকার কোন স্থানে রেখে দিতে হবে টানা দুই সপ্তাহের জন্য। পরিষ্কার কোন কাপড়ের সাহায্যে মিশ্রণ থেকে অলিভ অয়েল ছেঁকে নিতে হবে এবং ভিন্ন একটি কাঁচের বোতলে রাখতে হবে। ঠাণ্ডা ও শুকনো কোন স্থানে এই তেল রেখে দিতে হবে। যখনই প্রয়োজন হবে এই তেল পরিমাণ মতো ব্যবহার করতে হবে। এই তেল আপনি খেতে পারেন, ব্যথার কারণে মালিশ করতে পারেন মাথায় ও হাড়ের জয়েন্টে। এছাড়াও এই তেলের ঘ্রান মানসিক চাপ কপাতে সাহায্য করে, ব্রণের ওপরে প্রয়োগ করলে সেটাও নিরাময় হবে।

জাদুকরী তেজপাতার অন্যান্য গুণাগুণ সমূহ

তেজপাতা অ্যাসপিরিন এর পরিবর্তেও ব্যবহৃত হতে পারে। পেটে ব্যাথার ক্ষেত্রে তেজপাতা খুব দারুণ কাজ করে থাকে। ক্ষুধাভাব বৃদ্ধিতে তেজপাতা উপকারি ভূমিকা পালন করে। ত্বকের সমস্যা, রোমকূপের সমস্যা ও ব্রণের সমস্যার ক্ষেত্রে তেজপাতা দারুণ উপকারি উপাদান। মানসিক স্বাস্থ্যের ক্ষেত্রেও রয়েছে তেজপাতার লক্ষণীয় উপকারিতা। শরীরে ঘাম তৈরি করে থাকে তেজপাতা।