Home / লাইফ স্টাইল / সাইনোসাইটিস হলে কী করবেন?

সাইনোসাইটিস হলে কী করবেন?

সাইনোসাইটিস হলে কী- সকালে ওঠার পর থেকেই চোখের নিচে আর কপালে বেশ ব্যথা হচ্ছিল এনামের। অফিসে এসে বসতে না বসতে ব্যথা বাড়তে লাগলো। একসময় সেই ব্যথা পুরো মাথা, মুখমণ্ডলে ছড়িয়ে পড়লো। এই ব্যথা নিয়ে কাজ করাও যাচ্ছিলো না। বাধ্য হয়ে ছুটি নিয়ে চলে যেতে হলো। এমন ভয়াবহ ব্যথা অনেকবারই হয়েছে এনামের। সাধারণ ব্যথার ওষুধেও এখন আর কাজ হচ্ছে না। সবার পরামর্শে চিকিৎসকের কাছে যেতে হলো। পরীক্ষা নিরীক্ষা, সমস্যা আর উপসর্গ বিবেচনায় ধরা পড়লো সাইনোসাইটিস।

এনামের জন্য নতুন হলেও সাইনোসাইটিস আমাদের অনেকেরই অতি পরিচিত একটি সমস্যা। মাথার খুলিতে অবস্থিত সাইনাসের বিভিন্ন কাজ রয়েছে। বলা হয়ে থাকে এইসব সাইনাস নাকের মধ্যস্থিত বাতাসকে উষ্ণ ও আর্দ্র রাখে। মাথাকে হালকা রাখে এবং খুলির বিভিন্ন অঙ্গকে রক্ষা করে। মাথার খুলির চারিদিকে চার জোড়া বায়ুভর্তি কুঠুরি থাকে। সেগুলোই সাইনাস। সাইনাসের অভ্যন্তরীন আবরণ হিসেবে একধরনের ঝিল্লি থাকে। এই ঝিল্লির প্রদাহকেই সাইনোসাইটিস বলে। সাধারণত ঠাণ্ডা ও ভেজা পরিবেশ, ধোঁয়া, ধূলোবালি ইত্যাদি পরিবেশ সাইনোসাইটিসের অন্যতম কারণ।

সাইনোসাইটিওসের কারণ

সাইনোসাইটিসের অনেকগুলো কারণ রয়েছে। যেমন- নাকের ইনফেকশন, নাকের প্যাক, নাকের বাঁকা হাড়, নাকের মাংস ফুলে বড় হয়ে যাওয়া (হাইপারট্রফাইড ইনফিরিয়র টারবিনেট), নাকের পলিপ ইত্যাদি। দূষিত পানি, উচ্চমাত্রার ক্লোরিনযুক্ত পানিতে গোসল করলে পানি সাইনাসে প্রবেশ করে ইনফেকশন হয়। আবার যেকোনো আঘাতে সাইনাস ছিদ্র হয়ে উন্মুক্ত হলে ইনফেকশন হতে পারে। আবার দাঁতের ইনফেকশন মাড়ির একদম শেষ প্রান্তের দুটি দাঁত তুলে ফেলার সময় দাঁতের গোড়া দিয়ে সাইনাস উন্মুক্ত হয়ে পড়তে পারে এবং ইনফেকশন হতে পারে।

সাইনোসাইটিস-এর মূল উপসর্গ মাথাব্যথা। এই ব্যথা চোখের নিচে এবং কপালে থাকে। এছাড়া মুখমন্ডল ও মাথার বিভিন্ন অঞ্চলে ব্যথা হতে পারে। কোন সাইনাসে ইনফেকশন হয়েছে সে অনুযায়ী এই ব্যথার অঞ্চল পরিবর্তিত হয়। তবে ব্যথা নাকের গোড়ায়, উপরের চোয়ালের উপরে, চোখের নিচে, কপালে ও মাথার পিছন দিকে হতে পারে। চোখের নিচের কিংবা উপরের অংশের পাতা ফুলে যেতে পারে। চিবুক কিছুটা লাল হয়ে ফুলে যেতে পারে। নাকের ভিতরের পুঁজ একটি নির্দিষ্ট স্থান থেকে বেরিয়ে আসতে দেখা যাবে। নাকের ভিতরের মাংসগুলো ফোলা থাকতে পারে। নাকের হাড় বাঁকা থাকতে পারে। শারীরিক উপসর্গের মধ্যে রয়েছে- গা ম্যাজম্যাজে ভাব, জ্বর, শরীর ব্যথা ইত্যাদি।

সাইনোসাইটিস নিরাময়ে ঘরোয়া দাওয়াই

১. প্রতিদিন খালি পেটে ১ চামচ করে মধু খান। অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ মধু শ্বাসনালীর সমস্যা দূর করে সাইনাসের সমস্যাও কমায়।

২. সাইনোসাইটিসের সমস্যা হলে প্রচুর পানি পান করুন। প্রচুর পানি খেলে মিউকাস পাতলা হয়ে তখন নিজে থেকেই বের হয়ে আসে।

৩. সাইনাসের কারণে নাক বন্ধ থাকে। সেক্ষেত্রে সামান্য গরম পানিতে লবণ মিশিয়ে নাক দিয়ে টানার অভ্যাস করুন। নাকের একপাশ দিয়ে নিঃশ্বাস টেনে অন্য পাশ দিয়ে বের করলে মিউকাস সহজেই বের হয়ে যাবে।

৪. হালকা গরম পানিতে লেবুর রস মিশিয়ে প্রতিদিন এটা পানের অভ্যাস করুন। এ ছাড়াও গ্রিন টি পানের অভ্যাস করতে পারেন, উপকার পাবেন।

৫. সাইনোসাইটিস সমস্যায় গরম পানির ভাপ বা সেঁক (Vapour) একটি কার্যকর পদ্ধতি। গরম পানির ভাপ নিলে নাকের ভেতরে ভেজা থাকবে এবং সহজেই মিউকাস বের হয়ে আসবে।

৬. ঘুমের সমস্যার হলে সাইনাসের সমস্যাও বেশি হয়। এ কারণে পর্যাপ্ত পরিমাণে বিশ্রাম নিন এবং যতটা সম্ভব মানসিক চাপ থেকে দূরে রাখুন।