Home / স্বাস্থ্য টিপস / হৃদরোগ ওজন চুলপড়া নিয়ন্ত্রণ করবে মধু

হৃদরোগ ওজন চুলপড়া নিয়ন্ত্রণ করবে মধু

হৃদরোগ ওজন চুলপড়া- মধুর উপকারিতা সম্পর্কে কমবেশি আমরা সবাই জানি। মধুতে রয়েছে বিভিন্ন ধরনের রোগ নিরাময়ের ক্ষমতা। তবে বাজারে ভেজাল মধুর ছড়াছড়ি। তাই মধু কিনতে গেলে খাঁটি মধু দেখে কিনুন।

দেখা গেছে, মধু ও দারুচিনির মিশ্রণ স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী। এছাড়া হৃদরোগ থেকে শুরু করে ওজন কমানো পর্যন্ত প্রায় সবকিছুতেই মধু-দারুচিনির মিশ্রণ অত্যন্ত কার্যকরী।

আসুন জেনে নেই যেসব রোগ নিয়ন্ত্রণ করবে মধু।

হৃদরোগ

রক্তের কোলেস্টেরলের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রেখে হৃদরোগের সম্ভাবনা অনেকটাই কমিয়ে দেবে মধু। হার্ট সুস্থ্ রাখার জন্য দারুচিনি ও মধুর পানির কোনো বিকল্প নেই। প্রতিদিন সকালে এক গ্লাস মধু ও দারুচিনি মিশ্রিত পানি পান করলে হৃদরোগের ঝুঁকি অনেকটাই কমানো সম্ভব।

কোলেস্টরল

এক কাপ চায়ের সঙ্গে দুই টেবিল চামচ মধুর সঙ্গে তিন টেবিল চামচ দারুচিনি গুঁড়ো মিশিয়ে পান করুন। এটি রক্তে কোলেস্টরলের মাত্রা অন্তত ১০ শতাংশ কমেয়ে দেবে। রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখতেও এই মিশ্রণ অত্যন্ত কার্যকর।

পিত্তথলি

মধু-দারুচিনির মিশ্রণ পিত্তথলির সংক্রমণ রোধ করতে সক্ষম। মধু-দারুচিনিতে অ্যান্টি ব্যাক্টোরিয়াল উপাদান আছে, যা পিত্তথলিকে বাইরের ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণের হাত থেকে রক্ষা করে।

বাতের ব্যথা

একাধিক সমীক্ষায় দেখা গেছে, মধু-দারুচিনির পানি পান করার ফলে খুব অল্প সময়ের মধ্যে বাতের ব্যথা কমে যায়। এক গ্লাস গরম পানিতে দুই টেবিল চামচ মধু আর এক টেবিল চামচ দারুচিনির গুঁড়ো মিশিয়ে নিন। এই পানি প্রতিদিন নিয়ম করে সকালে ঘুম থেকে উঠে আর রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে পান করুন। কয়েক সপ্তাহের মধ্যে এটি আপনার বাতের ব্যথা কমিয়ে দেবে।

চুল পড়া

অলিভ অয়েলের সঙ্গে ১ টেবিল চামচ মধু, ১ চা চামচ দারুচিনির গুঁড়া মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে নিন। এটি চুলের ফাঁকা জায়গায় লাগান (যেখান থেকে চুল পড়ে গেছে সেখানে)। ১৫ মিনিট পর উষ্ণ গরম পানি দিয়ে চুল শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন। এটি নতুন চুল গজাতে সাহায্য করবে।

ওজন

শরীরের বাড়তি ওজন কমাতেও মধু দারুচিনির জুড়ি মেলা ভার। একাধিক সমীক্ষায় দেখা গেছে, দারুচিনি ও মধু খুব দ্রুত চর্বি কমাতে সাহায্য করে। প্রতিদিন দারুচিনি গুঁড়ো ও মধু দিয়ে ফোটানো এক গ্লাস পানি খালিপেটে পান করুন। এটি আপনার ওজন কমাতে সাহায্য করবে।