নতুন রূপে শের-ই বাংলা জাতীয় স্টেডিয়াম

দীর্ঘ বিরতির পর আবারও আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরছে মিরপুরের শের-ই বাংলা জাতীয় স্টেডিয়াম। তবে এবার নতুন রূপে সেজেছে হোম অফ ক্রিকেট মিরপুরের শের-ই বাংলা জাতীয় স্টেডিয়াম।

বিসিবি’র প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরী সুজন জানিয়েছেন, দেশী বিদেশী বিশেষজ্ঞদের দক্ষতায় নতুন রূপে গড়ে তোলা হয়েছে মিরপুর স্টেডিয়াম।

শনিবার (১০ নভেম্বর) নতুন মঞ্চেই টেস্ট সিরিজে রক্ষার মিশনে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে মাঠে নামবে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল।

নতুন রূপে সাজানো হোম অফ ক্রিকেটকে দূর থেকে দেখে মনে হতে পারে সবুজ ক্যানভাসে এটি একটি দাবার কোট। তবে এটি হাতি ঘোড়ার বুদ্ধিদীপ্ত দাবার কোট নয়। নতুন রূপে সাজানো মিরপুর শের-ই বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়াম।

ক্রিকেট বোর্ড থেকে জানা গেছে, ২০১৭ আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সময় ইংল্যান্ডের বেশ কয়েকটি ভেন্যু এমন ভাবে গড়ে তোলা হয়েছিলো। আর তারই আদলে রূপ মিরপুরের। মাঠ কর্মীদের অক্লান্ত শ্রমে অস্ট্রেলিয়া ও দেশের বুয়েটের বিশেষজ্ঞদের দক্ষতায় শের-ই বাংলার এমন রূপ। হোম গ্রাউন্ডের সুবিধা নেয়ার সুযোগ থাকলেও, সিলেটে প্রথম টেস্টে উইকেটের সুবিধা নিতে পারেনি বাংলাদেশ।

যদিও ঢাকার উইকেট নিয়েও আছে অভিযোগ। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দ্বিতীয় টেস্ট হবে তিন নম্বর উইকেটে। এটি স্পিন ট্রাক। যদিও গত টেস্টে নিজেদের মতো উইকেট তৈরি করেও হয়েছে বুমেরাং হয়েছে।

সিলেট টেস্ট হেরে দেয়া পিঠ বাংলাদেশের। সিরিজে পরাজয় এরাতে মিরপুরে টেস্টে জেতার কোন বিকল্প নাই। মিরপুরে সর্বশেষ টেস্টে শ্রীলঙ্কার কাছে হারের ক্ষত আছে স্বাগতিকদের।

২০০৭ সালে টেস্টে মিরপুরের স্টেডিয়াম অভিষেকের পর ১১ বছরে মোট ১৭টি টেস্টে খেলেছে। তাতে ১১টি হারের বিপরীতে সমান তিনটি জয় আর তিনটি ড্র করেছে বাংলাদেশ।