Home / বিনোদন / একসময় গোবিন্দার সাথে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতো এই নায়ক, বর্তমান জীবনে এনার অবস্থা দেখলে আপনার চোখে জল চলে আসবে…

একসময় গোবিন্দার সাথে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতো এই নায়ক, বর্তমান জীবনে এনার অবস্থা দেখলে আপনার চোখে জল চলে আসবে…

একটা সময় ছিল যখন এই হিরো সিনেমার পর্দায় আসত তখন সবাই ওনাকে অবাক হয়ে দেখতেন। মেয়েদেরও খুব পছন্দের ছিলেন ইনি, অভিনয় খুব ভালো করতেন। তা সত্ত্বেও বলিউডে উনি বেশি দিন পর্যন্ত টিকতে পারেননি।

আর এই জন্যেই তো সিনেমা জগতকে আজব এক দুনিয়া বলা হয়। কারণ এখানে যখন তখন যা কিছু হতে পারে।আজকে আমরা এরকম একজন অভিনেতার কথাও বলতে চলেছি। যার নাম হরি কুমার। উনি নিজের প্রথম সিনেমা করিস্মা কাপুরের সাথে করেছিলেন এবং তারপর গোবিন্দার সাথে তাকে অনেক সিনেমায় দেখা যায়।

কিন্তু তিনি কোনোদিন কোনো বড় সিনেমা করতে পারেননি আর তার জন্য হয়তো তিনি আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু থেকে দূরে চলে যান।এখন হরিশ কুমার কোথায়? কেন তিনি সিনেমা থেকে দূরে চলে গিয়েছিলেন? এইসব প্রশ্নের উত্তর জানার জন্য আমরা এই তথ্যটি এনেছি। তাহলে আসুন জানি সেই সমস্ত ব্যাপার গুলো। কম বয়সে হিরো হয়েছিলেন –

মাত্র ১৫ বছর বয়সে হরিশ কুমার কে মুখ্য অভিনেতার অফার আসতে শুরু করে। তার তেলেগু সিনেমা “প্রেম কয়েদি” খুব হিট হয়েছিল এবং পরে এটিকে আবার হিন্দিতে তৈরি করা হয়। যেখানে তার হিরোইন ছিল করিশ্মা কাপুর।
করিশ্মার প্রথম সিনেমার হিরো –

হরিশ কুমার করিশ্মা কাপুরের সাথে বহু সিনেমা করেছিলেন কিন্তু করিশ্মার প্রথম সিনেমার হিরো ছিলেন তিনি এবং এই সিনেমাটি খুব জনপ্রিয় হয়েছিল। আর তার জন্যই ওদের দুজনের ক্যারিয়ার অনেক উঁচুতে উঠেছিল।

কঠোর সংগ্রামের মধ্যে দিয়ে গিয়েছিলেন –

হরিশ ৯০ দশকের জনপ্রিয় নায়ক ছিলেন তিনি। সিনেমা জগতের একজন হিরো হিসেবে খ্যাতি অর্জন করার জন্য তাকে অনেক সংগ্রাম করতে হয়েছিল। কিন্তু তার পরেও তিনি এই জগতে বেশিদিন টিকে থাকতে পারেননিকুলি নাম্বার ১ এ তাকে দেখা গিয়েছিল –

হরিশ “কুলি নাম্বার ১” এ গবিন্দার বন্ধু হিসাবে অভিনয় করেছিলেন। যেখানে এই সিনেমার জন্য গবিন্দা চারিদিকে খুবই জনপ্রিয় হয়ে ওঠেন তেমনি হরিশ তার অভিনয়ের জন্য অনেক প্রশংসিত হন।

অভিজ্ঞ অভিনেতাদের সাথে কাজ করেছেন –
 হরিশ কুমার অনেক অভিজ্ঞ অভিনেতাদের সাথে সিনেমা করেছেন। তার সিনেমা বক্স অফিসে খুবই হিট হতো। কিন্তু তারপর কি হল যে তার সিনেমা আর হিট হতে পারল না। তেলুগু সিনেমাতেও কাজ করেছেন – হারিশ শুধু হিন্দি সিনেমা নয় তেলুগু সিনেমাতেও অনেক কাজ করেছেন। তিনি তেলেগু সিনেমার সেই সমস্ত হিরোদের মধ্যেই ছিলেন যারা মেয়েদের সাজে পর্দায় আসতে সাহস দেখাতএখন বেনাম – এমনিতেই অভিনেতারা কোটি টাকা রোজগার করেন। হরিশ কুমার ও ৯০ দশকে প্রচুর টাকা রোজগার করেছিলেন। কিন্তু এখন তাকে বাধ্য হয়েই অজ্ঞাত পরিচয় নিয়ে থাকতে হচ্ছে।

অ্যাওয়ার্ড পেয়েছিলেন – হরিশ কুমারকে সিনেমা “অন্ধ্র কেশরির” জন্য অন্ধপ্রদেশ সরকারের তরফ থেকে মুখ্যমন্ত্রীর হাত থেকে পুরষ্কারও পেয়েছেন। উনি এমন একজন অভিনেতা ছিলেন যিনি বহু ভাষাতে কাজ করেছেন। কিন্তু তা সত্বেও তিনি এই সিনেমা জগতে বেশিদিন টিকতে পারেননি।এই কারণে ক্যারিয়ার শেষ হয়ে গিয়েছিল – পরিশেষে এই অবস্থার জন্য সে অনেকটা নিজেই দায়ী। তথ্য অনুসারে হরিশ চকলেট বয় ইমেজ থেকে কোনদিনও বের হতে পারেননি এবং সে নিজের শরীরের ওপর কোনো নজর দেননি। এর কারনে পরে তিনি অনেক মোটা হয়ে যান এবং তার মুখ অনেক বদলে যায়। যার কারণে তিনি আর কোন সিনেমাতেই সুযোগ পান না। #ওনার শেষ সিনেমা –

২০০১ সালের “ইন্তেকাম” নামে ওনার শেষ সিনেমা রিলিজ হয়। এরপরে তিনি বলিউডে আর কোন কাজের সুযোগ পাননি।
তাহলে এই ছিল হরিশ কুমারের গল্প। আপনি এই তথ্যটি নিজের বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে পারেন এবং যদি আরোও কোন তথ্যের ব্যাপারে জানতে চান তাদের নিচে কমেন্টে লিখতে পারেন।