Wednesday , January 16 2019
Home / অপরাধ / ২২ ঘণ্টায় আমায় ১১০ জন পুরুষ ধর্ষণ করেছে, শুনুন সে কষ্টের কথা

২২ ঘণ্টায় আমায় ১১০ জন পুরুষ ধর্ষণ করেছে, শুনুন সে কষ্টের কথা

২২ ঘণ্টায় ১১০ জন- মায়ের সঙ্গে গ্রিসে বেড়াতে গিয়েছিলেন ১৪ বছর বয়েসী ব্রিটিশ শিশু মেগান স্টিফেনস (ছদ্মনাম)। পাহাড়, প্রকৃতি, জাদুঘর আর গ্রিসের মানুষের আতিথেয়তা- দারুণ কেটেছিল সফরের প্রথম দুটো দিন।

এরপরই তাঁর জীবনে নেমে আসে অন্ধকার। এক মেলায় ভিড়ের ভেতর দিয়ে যাওয়ার সময় মায়ের হাত ছুটে যায়। এরপর কয়েকজন পুরুষ তাকে তুলে নিয়ে বিক্রি করে দেয় যৌনপল্লীতে। সেখানে এক বছর কাটানোর পর মালিক তাকে বিক্রি করে দেয় অন্য এক জায়গায়।

এভাবেই জীবনের পরের ছয়টি বছর প্রতিনিয়ত হাতবদল হতে হয়েছিল তাঁকে। বর্তমানে ২৫ বছর বয়স্ক মেগান চলতি বছরের জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহে নারী ডেইলি মেইলকে জানান, তাঁকে প্রতিদিনই গড়ে ৫০ জনের সাথে যৌনক্রিয়া করতে হতো।

একবার অবস্থা এমন হয়েছিল যে, ২২ ঘণ্টার মধ্যে তাকে ১১০ জন পুরুষ ধর্ষণ করে। একসময় তিনি আত্মহত্যা করার সিদ্ধান্ত নেন। কিন্তু ভাগ্যের জোরে প্রাণ বেঁচে যায়। হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পর তিনি নতুন জীবন পান। তাঁর জীবনে প্রেম আসে। বদলে যায় জীবন।

সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে মেগান জানিয়েছেন তিনি এখন সন্তানসম্ভবা। তবুও ছয় বছরের দুঃস্বপ্ন যে তাড়া করে ফেরে তাঁকে। এখনো নিজের পরিবারের সন্ধান জানেন না মেগান। তবে তিনি আশা করেন একদিন তিনি তাঁর মায়ের কাছে ফিরতে পারবেন।

ঘণ্টায় ২০০ কিমি বেগে ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড়

প্রবল ঘূর্ণিঝড় আছড়ে পড়তে চলেছে বাংলার বুকে। ঘণ্টায় ২০০ কিমি বেগে ধেয়ে আসছে এই ঘূর্ণিঝড়। পশ্চিমবঙ্গ সহ বাংলাদেশের কিছু অংশে আঘাত হানবে এই ঘূর্ণিঝড়।

তথ্যে জানা যায়, প্রবল ঘূর্ণিঝড় আছড়ে পড়তে চলেছে বাংলার বুকে। আগামী ১১ অথবা ১২ অক্টোবর দক্ষিণ ২৪ পরগণার উপকূল ছুঁয়ে বাংলাদেশের খুলনা হয়ে ঘূর্ণিঝড়টি প্রবেশ করতে পারে সে দেশে। (সৌজন্যে -সিএন)।

এর জেরে ১০-১৪ অক্টোবর পর্যন্ত ওড়িশা, দক্ষিণবঙ্গ ও বাংলাদেশে মাঝারি থেকে ভারি বৃষ্টির সম্ভবনা। ঘূর্ণিঝড়ের কেন্দ্রে বাতাসের গড় গতিবেগ থাকতে পারে ১৫০ থেকে ১৬৫ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টা। সর্বোচ্চ গতিবেগ হতে পারে ১৮৫ থেকে ২০০ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টায়।

বর্তমানে আন্দামান সাগরের কাছে নিম্নচাপটি অবস্থান করছে। আগামী ১২ ঘন্টার মধ্যে সেটি সুষ্পষ্ট নিম্নচাপে পরিণত হবে। আগামী ৭২ ঘন্টার মধ্যে সেটি ঘূর্ণিঝড়ে পরিনত হবে। ঘন্টায় ১২ কিলোমিটার বেগে উত্তর-পশ্চিম দিকে এগোচ্ছে ঝড়টি।

আবহাওয়া অফিসের পূর্বাভাস দক্ষিণবঙ্গে প্রবল ঝড়-বৃষ্টির আশঙ্কা। উপকূলর্বতী এলাকা বিশেষ করে, পূর্ব মেদিনীপুর, দক্ষিণ ২৪ পরগনা, কলকাতা এবং উত্তর ২৪ পরগনায় ঝড়ের ব্যাপক তাণ্ডব দেখা যেতে পারে।আগামী ১৩ অক্টোবর পর্যন্ত মত্সজীবীদের গভীর সমুদ্রে যেতে নিষেধ করা হয়েছে।

মার্কিন আবহাওয়া দফতরের হিসেব অনুযায়ী, এটি ক্যাটেগরি ২ নিম্নচাপে পরিনত হতে পারে বলে পূর্বাভাস।সমুদ্রে ৩২ ফুট উচ্চতা পর্যন্ত ঢেউ উঠতে পারে বলে পূর্বাভাসে বলা হয়েছে।

এদিকে, বাংলাদেশের আবহাওয়া অধিদপ্তর জানায়, মৌসুমি বায়ু বিদায় নেওয়ায় বঙ্গোপসাগরে এক থেকে দুটি নিম্নচাপ সৃষ্টি হবে, যার একটি ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিতে পারে। এ ছাড়া দেশের বিভিন্ন এলাকায় স্বাভাবিক বৃষ্টিপাত হতে পারে।

এতে কয়েকটি নদীর পানি বৃদ্ধি পেলেও তা বিপদসীমার নিচেই থাকবে। গতকালের পূর্বাভাসে চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের দুই এক জায়গায় অস্থায়ী দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

এদিকে, আর কয়েকদিন পরই হিন্দু ধর্মালম্বীদের সবচেয়ে বড় পূজা দূর্গা পূজা অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। আর তাতে উৎসবমুখোর থাকে কলকাতা তথা এই পুরো পশ্চিমবঙ্গ।

বাংলাদেশেও থাকে পূজোর আমেজ। আর সেই আমেজে বিপদের আশনি সংকেত নিয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড়। তাছাড়াও বাংলাদেশেও পড়তে পারে এর কিছু আঁচ।

ধর্মীয় বিশ্বাসের জেরে মেয়েকে ৫ বছর দেখেন না টম ক্রুজ

হলিউড অভিনেতা টম ক্রুজ তার ১২ বছরের মেয়ে সুরিকে পাঁচ বছরেরও বেশি সময় ধরে দেখেন না। এর পেছনের কারণ টম ক্রুজ সাইন্টোলজি ধর্মে বিশ্বাস। আর টমের এই ধর্মীয় বিশ্বাসের জেরে মাসে দশদিন সুরির সঙ্গে দেখা করার অনুমতি থাকলেও, তাদের দেখা হয় না পাঁচ বছর ধরে।

২০০৭ সালে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়েছিলেন হলিউডের জনপ্রিয় তারকা জুটি টম ক্রুজ ও কেটি হোমস। কিন্তু সাইন্টোলজি ধর্মে বিশ্বাসের কারণেই বিয়ের পাঁচ বছর পর তার স্ত্রী ও অভিনেত্রী কেটি হোমস তাকে ছেড়ে চলে যান এবং সঙ্গে নিয়ে যান একমাত্র মেয়ে সুরি ক্রুজকে।

টমের সঙ্গে বিবাহ বিচ্ছেদের সময় কেটি জানিয়েছিলেন, তিনি চান না, তার মেয়ে সুরির ওপরে এই ধর্মের কোনো প্রভাব পড়ুক। আর তাই টম ক্রুজের সঙ্গে মেয়েকে দেখা করতে দেন না তিনি।ফলে দীর্ঘ পাঁচ বছর ধরে নিজের মেয়ের সঙ্গে দেখা করার সুযোগ পাননি টম।

হততাকপব, সাইন্টোলজি ধর্ম বিশ্বাসের প্রবর্তক হলেন কল্পবিজ্ঞান গল্পের বিখ্যাত লেখক এল রন হাবার্ড। হাবার্ড ১৯৫২ সালে তার বই ডাইনেটিকস-এর মূল বক্তব্য শরীরের সঙ্গে মন বা আত্মার সম্পর্কের ভিত্তিতে ধর্মটি প্রতিষ্ঠা করেন। পরবর্তীতে ১৯৫৩ সালে ক্যামডেন, নিউজার্সিতে চার্চ অফ সাইন্টোলজি নামে একটি গির্জা প্রতিষ্ঠা করা হয়।